Tips

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা,স্ট্যাটাস,কবিতা, উক্তি, বক্তব্য

26 march indipendent day ‍status: বাংলাদেশে প্রতি বছর ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালিত হয়। ১৯৭১ সালের এই দিনেই বাংলাদেশ পাকিস্তানের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভ করে। শুরু থেকেই বাংলাদেশ প্রতি বছর পূর্ণ উদ্দীপনা ও বর্ণাঢ্যভাবে এই দিনটি উদযাপন করে আসছে। তাই ২৬ শে মার্চ তথা স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এই পোস্টে, আমরা বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা, স্ট্যাটাস, কবিতা ও উক্তির একটি চমৎকার সংগ্রহ নিয়ে আপনাদের সামনে উপস্থিত হয়েছি।

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমরা নিয়ে এলাম ২৬ শে মার্চের শুভেচ্ছা বার্তা যা আপনি আপনার বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়দের নিকট পাঠাতে পারেন।

১) স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশের নাগরিক হতে পেরে আমরা অনেক ধন্য। এর জন্য আমাদের অবশ্যই কৃতজ্ঞ হতে হবে আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের যারা আমাদের দেশের জন্য আত্মত্যাগ করেছেন আল্লাহ তাহাদের ক্ষমা করুক। স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

২) স্বাধীনতা দিবস হল সেই সকলকে স্মরণ করার দিন যারা আমাদের স্বাধীন দেশ পেতে এবং আমাদের একটি স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে নিজেদের তাজা প্রাণ আত্মত্যাগ করেছেন। সকলকে স্বাধীনতা দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা।

৩) স্বাধীনতা দিবসে সকলকে উষ্ণ ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা জানানো দায়িত্ব । তাই সকলকে আনন্দে পূর্ণ স্বাধীনতা দিবসের একটি আশ্চর্যজনক দিন উদযাপনের শুভেচ্ছা। স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

২৬ শে মার্চ ব্যানার

৪) বাংলাদেশ এমন একটি দেশ! যে দেশটি ব্যাপকভাবে জনগণের ইচ্ছার উপর ভিত্তি করে, তাকে সর্বশ্রেষ্ঠ দেশগুলির মধ্যে পাওয়া যায়। সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের আন্তরিক শুভেচ্ছা।

৫) স্বাধীনতা অর্জন যেকোনো দেশের জন্য গর্বের বিষয়। বাংলাদেশের মতো একটি দেশের জন্য এটি একটি বড় অর্জন। স্বাধীনতা দিবসের আন্তরিক শুভেচ্ছা। আসুন এটিকে বিশেষ করে তুলি।

৬) সত্যিকারের স্বাধীনতা অর্জনকারী একজন মানুষকে ধরে রাখার আমাদের কোনো কারণ নেই কারণ তিনি এখন একজন বিজয়ী। তাই সকল শহীদ বিজয়ীদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

৭) বাংলাদেশ বিভিন্ন ধর্ম, ভাষা ও সংস্কৃতির দেশ। আমরা সবাই এখানে শান্তিতে বসবাস করি। আসুন আমরা নিজেদেরকে ঐক্যবদ্ধ করার মাধ্যমে আনন্দ ও বর্ণময়ভাবে আমাদের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করি। আমাদের প্রিয় দেশ তোমাকে স্বাধীনতা দিবসের অনেক শুভেচ্ছা।

৮) স্বাধীনতা অর্জনের মাধ্যমে আমরা নিশ্চিতভাবে সর্বোচ্চ স্থানের সিংহাসনে অধিষ্ঠিত হয়েছি। সুতরাং এই স্থানটি আকড়ে রাখে সকল বাঙ্গালীর উপর কর্তব্য। সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

২৬ শে মার্চ এর ব্যানার ডিজাইন

৯) স্বাধীনতা মানে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্তি। স্বাধীনতা সম্পূর্ণভাবে উপভোগ করতে হলে প্রত্যেক নাগরিকের কিছু দায়িত্ব ও কর্তব্য রয়েছে এবং সেগুলো অবশ্যই পালন করতে হবে। প্রত্যেক বাংলাদেশীকে স্বাধীনতা দিবসের আন্তরিক শুভেচ্ছা।

১০) আমার সকল দেশবাসীকে স্বাধীনতা দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে আমার কামনা বাংলাদেশ সবসময় উন্নয়নের ময়দানে হাঁটুক এবং সারা বিশ্বের জন্য এটিকে একটি অনুকরণীয় দেশে পরিণত করার স্বপ্ন পূরণ করুক।

১১) বাবা, মা, ভাই, বোনের রক্ত ​​দিয়ে আমার হৃদয়ে লেখা স্বাধীনতার ইতিহাস আমি কখনো ভুলব না। সকলকে একটি রঙিন স্বাধীনতা দিবস ২০২২ এর শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

[quads id=7]

১২) আমাদের সবার মনে দেশপ্রেম থাকা উচিত। কারণ দেশপ্রেমই পারে দেশকে উন্নয়নের সর্বোচ্চ শিখরে নিয়ে যেতে। সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের আন্তরিক শুভেচ্ছা।

১৩) বাংলাদেশের অনেক অসামান্য অর্জন থাকতে পারে কিন্তু শুধুমাত্র স্বাধীনতার প্রভাবই সর্বোচ্চ সাহসিকতা। আসুন বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করি। সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

১৪) অনেক রক্ত ও জীবনের বিনিময়ে আমাদের এই স্বাধীনতা। আজ আমরা শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি স্বাধীনতার জন্য যারা নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছেন। সকলকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

২৬ শে মার্চ এর ব্যানার ডিজাইন ২০২২

১৫) মুক্তিযোদ্ধারা নিঃসন্দেহে যে কোন সময় বা যুগের মুকুটধারী মধ্যেও সবচেয়ে সক্ষম পুরুষ। তাই সকলের উচিত তাদের শ্রদ্ধার সাথে মনে রাখা। এই বিশেষ দিন উপলক্ষে সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

১৬) আমরা সবাই জানি যে স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে রক্ষা করা কঠিন। তাই স্বাধীনতা রক্ষার জন্য আমাদের দেশের উন্নতি, উন্নয়ন ও সুখের জন্য ঐক্যবদ্ধভাবে কঠোর পরিশ্রম করা আমাদের দায়িত্ব। এই বিশেষ উপলক্ষে সবাইকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমরা নিয়ে এলাম ২৬ শে মার্চের স্ট্যাটাস যা আপনি আপনার বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়দের নিকট পাঠাতে পারেন।

১) আজ ২৬ ই মার্চ। আমাদের স্বাধীনতা দিবস। সবাইকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা। এই সৌভাগ্যের দিনেই আমাদের দেশ পাকবাহিনীর কাছ থেকে স্বাধীন হয়েছিল।

২) বাংলাদেশকে একটি স্বাধীন দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য অনেক নিষ্ঠা ও ত্যাগ স্বীকার হয়েছে। বিশেষত, লাখো শহীদের রক্তের বদলা, লাখো মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে এই স্বাধীনতা। সবাইকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

[quads id=7]

৩) বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস আমাদের সকলকে স্মরণ করিয়ে দেয় যে আমাদের পূর্বপুরুষেরা সত্যিকার অর্থেই এই স্বাধীনতা আমাদের কাছে আনতে অনেক কঠোর পরিশ্রম করেছেন। তাই সকলের দায়িত্ব দিনটিকে সম্মানের সঙ্গে পালন করা। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস ২০২২।

৪) আমরা সত্যিই ধন্য যে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশ হয়েছিল এবং আমাদের অবশ্যই এই দিবসটি সম্মান, শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসার সাথে উদযাপন করতে হবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

৫) স্বাধীন হওয়ার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আর কিছুই নেই এবং আমরা আনন্দিত যে আমরা একটি স্বাধীন দেশ। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।

৬) এই স্বাধীনতা পেতে আমাদের অনেক কিছু হারাতে হয়েছে যা আমরা আজ উপভোগ করছি।

স্বাধীনতা আমাদের কাছে সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। সবাইকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

৭) বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন আমাদের প্রত্যেককে স্মরণ করিয়ে দেয় যে আমরা এই স্বাধীনতা পেতে অনেক প্রিয়জনকে হারিয়েছি এবং আমাদের তা কখনই ভুলতে হবে না।

আরো নতুন পোষ্ট পড়তে পারেন-

স্বাধীনতা দিবসের কবিতা

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমরা নিয়ে এলাম ২৬ শে মার্চের কবিতা যা আপনি আপনার বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়দের নিকট পাঠাতে পারেন বা পোস্ট করতে পারেন নিজ টাইমলাইনে।

১) স্বাধীনতা তুমি লাখো শহীদের রক্তে ভেজা স্বপ্ন!
স্বাধীনতা তুমি বাঙ্গালী মায়ের হারিয়ে যাওয়া রত্ন।
স্বাধীনতা তুমি লাখো বাঙ্গালীর অশ্রুর নোনাজল!
স্বাধীনতা তুমি শেখ মুজিবের জয় বাংলার ফল।

২) স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত আজ বিশ্বমঞ্চময়!
সকলেই আজ মাতিছে সাদরে বাঙ্গালীর নাহি ভয়।
স্বাধীনতাটারে অর্জিতে আজি নামিছে কত ভক্ত!
দেশের নেশায় ভাষার নেশায় ঝরিয়াছে কত রক্ত।

৩) দেশের টানে ভাষার মানে জাগিছে নতুন দিন।
না পারিবে কেও সোধ করিতে শহীদদের এই রিণ।
সকলে মিলিয়া গাহিব উঠিয়া স্বাধীনতার এই গান!
ক্ষমা করো প্রভু তাহাদের যারা দিয়েছে নিথর প্রাণ।

৪) গাহি শহীদের গান!
তাহাদের চেয়ে নাহি কেও বড়!
নাহি তো চির মহান।
দেশের তরে মাতিয়া উঠিয়া!
হুমকিতে লইয়া প্রাণ!
তাই তো মোরা সকলে মিলিয়া!
গাহি শহীদের গান।

৫) জাগিছে বাঙ্গালী করিছে শপথ!
রাখিবে মায়ের মান!
দেশের টানে ভাষার পানে!
বিলিয়ে ছাড়িবে প্রাণ।
ঐক্যবদ্ধ হইয়া সকলে শত্রু করিবে বদ!
বাংলাদেশকে বাঁচাতে তারা!
ফের নেবে প্রতিশোধ।

৬) চলো তবেঁ ন্যায়ের পথে যাই!
দেশের চাইতে বড় কিছু আর!
এই পৃথিবীতে নাই।
দেশের তরে বিকিয়েছে যারা!
নিজেদের তাজা প্রাণ।
সারা বাঙ্গালার আকাশে বাতাসে!
তাহাদের গুণগান।

স্বাধীনতা দিবসের উক্তি

মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমরা নিয়ে এলাম ২৬ শে মার্চের নিয়ে উক্তি যা আপনি আপনার বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়দের নিকট পাঠাতে পারেন।

১) আমি কোন পাখি নই এবং কোন জাল আমাকে আটকায় না। আমি স্বাধীন ইচ্ছার অধিকারী একজন স্বাধীন মানুষ। – শার্লট ব্রন্টে

২) “স্বাধীনতার মূল্য নেই যদি এটি ভুল করার স্বাধীনতাকে বোঝায় না।” – মহাত্মা গান্ধী

৩) “তোমার রক্ত যদি না গজায়, তবে তোমার শিরায় জল বয়ে যায়। যৌবনের স্রোত যদি মাতৃভূমির সেবা না হয় তাইলে আর কিসের জন্য?” – চন্দ্র শেখর আজাদ

৪) একজন ব্যক্তি একটি ধারণার জন্য মারা যেতে পারে, কিন্তু সেই ধারণাটি তার মৃত্যুর পরে হাজারো জীবনে অবতীর্ণ হবে।” – নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু

৫) একটি দেশের মহত্ত্ব নিহিত রয়েছে তার ভালবাসা এবং ত্যাগের অবিনশ্বর আদর্শ যা জাতির মায়েদের অনুপ্রাণিত করে।” – সরোজিনী নাইডু

৬) যতক্ষণ না আপনি সামাজিক স্বাধীনতা অর্জন না করেন, আইন দ্বারা যা কিছু স্বাধীনতা প্রদান করা হয় তা আপনার কোন কাজে আসবে না।” – বিআর আম্বেদকর

৭) “আমাকে তোমার রক্ত দাও আমি তোমাকে স্বাধীনতা দেব!” – নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু

[quads id=7]

৮) একটি দেশে সেই তিনটি অবর্ণনীয় মূল্যবান জিনিস রয়েছে: বাকস্বাধীনতা, বিবেকের স্বাধীনতা, এবং বিচক্ষণতা। কখনোই এগুলোর কোনোটি ভুল অনুশীলন না করা। – মার্ক টোয়েন

৯) স্বাধীনতা বিলুপ্তির থেকে এক প্রজন্মের বেশি দূরে নয়। আমরা এটি আমাদের সন্তানদের রক্তপ্রবাহে প্রেরণ করিনি। এটি অবশ্যই তাদের জন্য লড়াই করা, রক্ষা করা এবং তাদের একই কাজ করার জন্য হস্তান্তর করা উচিত।” -রোনাল্ড রিগান

১০) “যদি বাকস্বাধীনতা কেড়ে নেওয়া হয়, তাহলে নির্বাক ও নীরব আমরা ভেড়ার মতো জবাইয়ের দিকে নিয়ে যেতে পারি।” -জর্জ ওয়াশিংটন

১১) “স্বাধীনতা কখনই সরকারের কাছ থেকে আসেনি। স্বাধীনতা সর্বদা এর প্রজাদের কাছ থেকে এসেছে। স্বাধীনতার ইতিহাস প্রতিরোধের ইতিহাস।”-উডরো উইলসন

১২) “মুক্ত হওয়া মানে কেবল নিজের শিকল খুলে ফেলা নয় বরং এমনভাবে জীবনযাপন করা যা অন্যের স্বাধীনতাকে সম্মান করে এবং বৃদ্ধি করে।”
–নেলসন ম্যান্ডেলা

১৩) “আপনি যা বলবেন আমি তার সাথে একমত নই, তবে আমি মৃত্যু পর্যন্ত আপনার বলার অধিকার রক্ষা করব।”–ভলতেয়ার

১৪) “[আমরা] চারটি অপরিহার্য মানব স্বাধীনতার উপর প্রতিষ্ঠিত একটি বিশ্বের জন্য অপেক্ষা করছি। প্রথমটি হল বাক ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা — বিশ্বের সর্বত্র। দ্বিতীয়টি হল প্রত্যেক ব্যক্তির নিজস্ব উপায়ে প্রভুর উপাসনা করার স্বাধীনতা– বিশ্বের সর্বত্র। তৃতীয়টি হল চাওয়া থেকে স্বাধীনতা–যা বিশ্ব পরিভাষায় অনুবাদ করা হয়েছে, মানে অর্থনৈতিক বোঝাপড়া যা প্রতিটি জাতিকে তার বাসিন্দাদের জন্য একটি সুস্থ শান্তিকালীন জীবন সুরক্ষিত করবে– বিশ্বের সর্বত্র। চতুর্থটি হল ভয় থেকে স্বাধীনতা- -যা, বিশ্ব পরিভাষায় অনুবাদ করা, মানে বিশ্বব্যাপী অস্ত্রশস্ত্রের এমন একটি বিন্দুতে এবং এমন পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে হ্রাস করা যাতে কোনো জাতি কোনো প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে শারীরিক আগ্রাসন করার মতো অবস্থানে না থাকে – বিশ্বের যে কোনো স্থানে। — ফ্রাঙ্কলিন রুজভেল্ট

১৫) স্বাধীনতা সাহসী হওয়ার মধ্যে নিহিত। -রবার্ট ফ্রস্ট

২৬ শে মার্চের বক্তব্য/স্বাধীনতা দিবসের ভাষন

মহান স্বাধীনতা দিবসকে স্মরণীয় করে তুলতে একমাত্র সুন্দর পন্থা হচ্ছে স্বাধীনতার প্রেক্ষাপটে মহান ২৬ শে মার্চের বক্তব্য/ ভাষণ।

উপস্থিত মাননীয় প্রধান অতিথি, সভাপতি এবং শ্রোতামন্ডলি। সকলকে আমার আদাব এবং সালাম।

আজ  ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস এবং একটি গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় দিবস উপলক্ষে আমাদের সামনে হাজির হয়েছি।

২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। বাঙালি জাতির ইতিহাসে সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীন-সার্বভৌম ‘বাংলাদেশ’ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের স্ফুলিঙ্গে উজ্জীবিত সশস্ত্র জনযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয়েছে আমাদের মুক্তির ইতিহাস, স্বাধীনতার ইতিহাস। স্বাধীনতার ইতিহাস ৩০ লাখ শহীদের আত্মদান আর দুই লক্ষ মা-বোনের ত্যাগ-তিতিক্ষা এবং কোটি বাঙালির আত্মনিবেদন ও সংগ্রামের গৌরবগাঁথা গণবীরত্বের ইতিহাস।

[quads id=7]

২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস। ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ স্বাধীনতার ঘোষণা দেন বঙ্গবন্ধু। ১৯৭১ সালের তাৎপর্যপূর্ণ এই দিনটিকে স্মরণ করে  প্রতি বছর গভীর শ্রদ্ধা ও ভাবগম্ভীর্যের মাধ্যমে পালন করা হয় দিনটি। জাতীয় জীবনে স্বাধীনতা দিবসের গুরুত্ব ও তাৎপর্য অপরিসীম। এই দিনটি প্রত্যেক বাংলাদেশীর জীবনে বয়ে আনে একই সঙ্গে আনন্দ-বেদনা-গৌরবের এক অম্ল মধুর অনুভূতি। ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। যাদের আত্মনিয়োগ, এবং আত্মোৎসর্গের, মধ্য দিয়ে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। সেই সকল শহীদ এবং বীর  মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি রইল বিনম্র শ্রদ্ধা। সর্বস্তরের সর্বোচ্চ ত্যাগের, বিনিময়ে পাওয়া আমাদের   প্রিয় এই  মাতৃভূমি, যাতে বিশ্বের কাছে মাথা উঁচু হয়ে দাঁড়াতে পারে সেটাই হোক আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর অঙ্গীকার। ইতিহাস পড়ার চেয়ে ইতিহাস অনুভব করা বেশি কস্টের। ছোটবেলা থেকে আজ অবধি অনেকবার ইতিহাস পাঠ করে এসেছি। কখন ও ফিল হয়েছে কি? সত্যিকার অর্থে বাংলাদেশেরমানুষ ইতিহাস পড়ে পরীক্ষায় মার্কস উঠানোর জন্য। খুব কমসংখ্যক মানুষ ই আছেন যারা সত্যিকারের ইতিহাস পড়েন। তাদের রক্ত টগবগ করে ফুটতে থাকে। বুকের ভেতর সিডর হয়। গায়ের লোম কাটা দিয়ে ওঠে।ভাই ৩০ লাখ মানুষ সহজ কথা না। বইয়ের ভাষার চেয়ে বাস্তব টা অনেক ভিন্নধর্মী। খুব বিভৎস, খুব নির্মম, আমাদের ইতিহাস।মুক্তিযুদ্ধে ঝড়ানো রক্ত লিটারে হিসাব করা যায়না। এই রক্ত হিসাব করার কোন ক্যালকুলেটর তৈরী হয়নি। আমরা আসলেই ঋণী।এই ঋণ শোধ করার ক্ষমতা বা যোগ্যতা সৃষ্টিকর্তা আমাদের দেয়নি।

[quads id=7]

আজ ২৬ শে মার্চ। মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপিৎ হচ্ছে দেশের প্রতিটা জেলা-উপজেলা থেকে শুরু করে থানা, ইউনিয়ন থেকে গ্রামে গন্ঞ্জে উৎসব মূখর পরিবেশে।১৯৭১ সালের এই দিনে অর্থাৎ আজকের দিনে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমাদের বীর মুক্তিযোদ্ধারা ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতার রক্তিম সূর্য়। যাদের রক্ত এবং আত্নত্যগে এই স্বাধীনতা পেয়েছি আমরা জাতী তা আজ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে। ত্রিশ লক্ষ জীবনের বিনিময়ে এই এই স্বাধীনতা আমরা পেয়েছি….দেশের অধিকাংশ এলাকায় মাইকে বাজছিল একটাই গান “এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনলো যারা আমরা তোমাদের ভূলবোনা”

১৯৫২ এর ভাষা আন্দোলনের শহীদদের রক্তে রন্জ্ঞিত হয়েছিল ঢাকার রাজথ। সালাম,বরকত,শফিউর সহ অনেকে মায়ের ভাষার জন্য বুকের তপ্ত রক্ত ঢেলে দিয়ে রাজপথকে রন্ঞ্জিৎ করেছিল বলেই সেই ক্ষোভ থেকে ধীরে ধীরে বাঙালী জাতী পাকিস্তানীদের অবিচার-অনাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী হয়ে ওঠে। অবশেষে সত্তরের লোক দেখানো নির্বাচন অবশেষে নির্বাচনে শেখ মুজিবুর রহমানকে নির্বাচনে বিজয়ী হওয়া সত্বেও পাকিস্তানী সামরিক সরকার ক্ষমতা হস্তান্তর না করায় জাতী তখন দ্রোহের আগুনে ফুঁসছিল।

অবশেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালী জাতী একাত্রিত হয়ে অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের জন্য পুরোপুরিভাবে প্রস্তত।

আসুন মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত চেতনা লালন করি-ঃ বাংলাদেশের জন্ম কথা হচ্ছে সংগ্রামের ইতিহাস। আমরা ছিলাম পরাধীন জাতি, বৃটিশ আমল থেকে শুরু করে পাকিস্তান আমল পর্যন্ত এদেশে মানুষকে অনেক শোষণ, বঞ্চনা ও অবহেলার ইতিহাস সহ্য করতে হয়ছে। স্বাধীনতা কেউ কাউকে দেয় না। সংগ্রাম করে, রক্ত দিয়ে, জীবন দিয়ে অর্জন করতে হয়। জীবন দিয়ে, প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করে, পরার্মশ দিয়ে, উৎসাহিত করে জীবন বাজী রেখে যারা স্বাধীন করেছেন এ দেশকে সবার প্রতি সন্মান ও আন্তরিক শ্রদ্বা জানাই। দেশ স্বাধীন করে অনেক সূর্য সন্তান, প্রকৃত দেশপ্রেমিক আমাদের কাছ থেকে চলে যাচ্ছেন। কিন্তু রেখে যাচ্ছেন এ প্রিয় স্বাধীন মাতৃভূমি। আমরা যদি এ দেশের ইজ্জত সন্মান ধরে রাখতে না পারি তাহলে আমরা ব্যর্থ বলে গণ্য হব। আর যদি আমরা সফল জাতি হিসাবে নিজেদের মাথা উঁচু করে দাড়াই তাহলে আমরা বীরের জাতি বলতে পারব। আমাদের শহীদদের আত্মত্যাগ সার্থক হবে, আত্না শান্তি পাবে। আসুন দেশের উন্নয়নে সবাই মিলে এক হয়ে কাজ করি। দেশকে আন্তরিক ভাবে ভালবাসি, দূর্নীতি মুক্ত সমাজ গড়ি। দুর্নীতি বাজদের বয়কট করি ও তাদের কর্মকান্ডকে ঘৃণা করি। সবার মঙ্গল কামনা করে বিদায় নিলাম।
আস সালামু আলাইকুম। জয় বাংলা।

২৬ শে মার্চ এর ব্যানার ও পোষ্টার ডিজাইন

স্বাধীনতা দিবসের পোষ্টার ও ব্যানার ২০২২: ২৫ শে মার্চ পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী নির্মমভাবে নিরহ পূর্ব পাকিস্তানিদের উপর হত্যা কান্ড চালায় এবং ২৬ মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে কিন্তু বঙ্গবন্ধকে গ্রেফতার করার আগে একটি ভাষনে বলেছেন আজ থেকে আমরা স্বাধীন। ২৬ মার্চ থেকে শুরু হয় পূর্ব পাকিস্তান ও পশ্চিম পাকিস্তানের যুদ্ধ, দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধের পর ৩০ লক্ষ শহীদের জীবনের বিনিময়ে আমরা সেই যুদ্ধে বিজয় লাভ করি। যেহেতু ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ রাতে এই দেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে ঘোশনা করেন বঙ্গবন্ধু, সেই থেকেই ২৬শে মার্চকে আমরা স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

[quads id=7]

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় স্বাধীনতার শুভেচ্ছা ও দেশের জন্য যারা শহীদ হয়েছেন তাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানোর জন্য পোষ্টার, ব্যানার সন্ধান করে থাকি। আজকের পোষ্টের মাধ্যমে ২৬শে মার্চে পোষ্টার, ব্যানার, ছবি আপনাদের মাঝে শেয়ার করা হবে। বিশেষ করে, রাজেনৈতিক নেতারা পোষ্টার, ব্যানার খুঁজে থাকে, স্বাধীনতা দিবসকে কেন্দ্র করে। ২৬ শে মার্চ এর ব্যানার ডিজাইন ২০২২, ২৬ শে মার্চ এর পোষ্টার ডিজাইন, বিজয় দিবসের ব্যানার ইত্যাদি! নিচে আপনাদের কাছে পিডিএফ ফাইল ও পিএসডি ফাইল শেয়ার করা হবে, আপনি যদি ফটোশপ, ইলাস্ট্রেটর ব্যবহার করে থাকেন তাহলে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে নিজের মত করে ব্যানার ও পোষ্টার ডিজাইন করে নিতে পারেন নিম্নের পিডিএফ অথবা স্বাধীনতিা দিবসের ছবি দিয়ে।

PDF  

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা ফটো
স্বাধীনতা দিবসের ব্যানার
স্বাধীনতা দিবসের পোষ্টার
স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা ফটো

শেষ কথাঃ আশাকরি আপনাদের ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা, ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস, ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের কবিতা, ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের উক্তি, ২৬ শে মার্চের বক্তব্য ২৬ শে মার্চ এর ব্যানার ও পোষ্টার ডিজাইন আপনাদের ভালো লেগেছে। তাই আমাদের সাইটের পোষ্ট বন্ধুদের নিকট শেয়ার করতে পারেন অথবা বুকমার্কে সেভ করে রাখুন আমাদের সাইট।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button