Tips

অনলাইনে যেভাবে ইনকাম করবেন ২০২১ Make Money Online

অনলাইনে ইনকাম ২০২১: বর্তমানে অনলাইনে ইনকাম করার ভিবিন্ন উপায় আছে তবে যারা অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে চান তাদের জন্য আমাদের আজডেকর ট্রিক্স । অনলাইনে ভিবিন্ন ধরনের উপায় আছে যার ভিতরে অন্যতম ফেসবুক, ইউটিউব, গুগল এডসেন্স ও ব্লগিং এবং ফ্রিল্যান্সিং/এফিলিয়েট এগুলো অনলাইনে ইনকাম করার অন্যতম মাধ্যম এছাড়া ভিবিন্ন ধরনের অনলাইনে ইনকাম করার উপায় আছে যা আপনাকে খুুঁজে বের করতে হবে । আমাদের দেওয়া ৭ টি উপায় মনোযোগ অনুসরন করলে আপনি অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন এবং সফল ফ্রিল্যান্সার হতে পারবেন ।

ব্লগিং করে অনলাইনে ইনকাম

ব্লগিং করে অনলাইনে ইনকাম: আপনাকে অব্যশই জেনে নিতে হবে ব্লগিং কি? কিভাবে ব্লগ তেরি করব? লিখে কিভাবে টাকা উপার্জন করবো এগুলো নিয়ে অনেক চিন্তা করেন ব্লগিং করার আগে আমাদের দেওয়া টিপস গুলো ফলো করলে ব্লগিং করার আগে চিন্তাগুলো  আসবেনা ।

কিভাবে ব্লগ তৈরী করব: ব্লগ তৈরি করতে হলে আপনাকে ওয়েব হোস্টিং এবং ডোমেইন কিনতে হবে এছড়া গুগলের Blogger থেকে ফ্রি একাউন্ট করে ব্লগিং করতে পারেন । কিভাবে হোস্টিং এবং ডোমেইন এক সঙ্গে কানেক্ট করতে হয় এবং ডোমেইন হোস্টিং কিভাবে কিনতে হয় এবং কোন কোম্পানি থেকে হোস্টিং ডোমেইন কিনলে ভাল সার্ভিস পাবেন বিস্তারিত ইউটিউবে সার্চ করলে পেয়ে যাবেন । আমি আপনাদের পরামর্শ দিব নেমচিপ/ হোষ্টিংগার থেকে ডোমেইন হোষ্টিং কিনতে পারেন । হোস্টিং ডোমেইন কিনে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস সিএমএস দিয়ে ব্লগ/নিউজ সাইট বানিয়ে নিতে পারেন । সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সহজ সিএমএস  ওয়ার্ডপ্রেস  তাই ওয়ার্ডপ্রেস  দিয়ে ব্লগ বানাতে পারেন । ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে সাইট বানাতে আপনাকে হোষ্ট ডোমেইন কিনতে হবে ডলার দিয়ে ।  যাদের ডুয়েল কারেন্সি কার্ড নেই তারা বাংলাদেশী হোষ্টিং প্রোভাইডারদের কাছ থেকে বিকাশ প্রেমেন্ট মাধ্যমে কিনতে পারেন ।

কিভাবে ব্লগার হওয়া যায়ঃ ব্লগার হতে হলে আপনাকে ভিবিন্ন বিষয়ে অনলাইনে লিখতে হবে । যেমনঃ চাকরির খবর, টেকনোলজি,টিপস ইত্যাদি । আপনি চাইলে অন্যান্য বিষয়ে লিখতে পারেন । তবে ব্লগার হওয়ার পাশাপাশি যদি ইনকাম করতে চান তাহলে অবশ্যই পপুলার কিওয়ার্ড রিচার্জ করে ইউনিক কন্টেন্ট লিখতে হবে । কারন ওয়েবসাইটে ভিজিটর ইনকাম করা যায়না । ইউনিক কন্টেন্ট লিখে গুগল এডসেন্স ওথবা ফেসবুক ইনস্টান আর্টিকেল এর মাধ্যম এ ইনকাম করতে পারেন ।
গুগল এডসেন্সঃ গুগল এডসেন্স হল আপনার ব্লগের জন্য এড মনিটাইজেশনের জন্য  আবেদন করতে হবে গুগগলের কাছে গুগল যদি মনে করে আপনার সাইট মনিটাইজেশনের জন্য উপযুক্ত তাহলে আপনার সাইট এ এডসেন্স মনিটাইজেশন পাবেন তবে কপিভিডিও দিয়ে মনিটাইজেশন পাবেননা নিজের ভিডিও থাকতে হবে ইউটিউবে ।
বি: দ্র: মনিটািইজেশনের জন্য আপনাকে Adsense  এর জন্য আবেদন করতে হবে ।
ইনস্টান আর্টিকেলঃ ইনস্টান আর্টিকেল হল ফেসবুক থেকে ইনকামের মাধ্যম যেখানে গুগল এডসেন্স এর মত আপনাকে আর্টিকেল জন্য ফেসবুকের কাছে আবেদন করতে হবে । আপনার সাইট  যদি মনিটাইজেশনের জন্য উপযুক্ত হয় তাহলে আপনার ওয়েব সাইট এপ্রোভ হবে এবং আপনার একটি ফেসবুকে পেজ লাগবে যেই পেজে ১০,০০০ লাইক হতে হবে  এছাড়া ফেসবুকে ডিডিও বানিয়েও চাইলে ইনকাম করতে পারবেন। তবে কপিভিডিও দিয়ে মনিটাইজেশন পাবেননা নিজের ভিডিও থাকতে হবে ।
বি: দ্র: মনিটািইজেশনের জন্য আপনাকে  instant-articles এর জন্য আবেদন করতে হবে ।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ কি

ফ্রিল্যান্সিং এং অনলাইনে বসে অন্য কারও কাজ টাকার বিনিময়ে করে দেওয়াকে বোঝায় । বিশ্বের সব দেশের মানুষ  কম বেশি এখন ফ্রিল্যান্সিং এর সাথে সংযুক্ত আছে । আপনাদের কাছে প্রশ্ন থাকতে পারে ফ্রিল্যান্সিং কিরে টাকার পাওয়ার কোন নিশ্চয়তা আছে কিনা । ১০০% টাকা পাওয়ার নিশ্চয়তা আছে তবে ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আপনাকে ১০০% কাজ জানতে হবে । কাজ না জেনে ফ্রিল্যান্সিং করতে গেলে আপনার একাউন্ট হারাবেন এবং কোন কাজ পাবেন না । যে ধরনের কাজ ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে করা যাবে যেমনঃ গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো ডিজাইন, ‍ডিজিটাল মার্কেটিং, ওয়েব ডেভলপমেন্ট ইত্যাদি এছাড়া ভিবিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন অনলাইন মার্কেট প্লেস এ । ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য যোগ্যতা সম্পন্ন ব্যাক্তি fiver,upwork,freelancer,com সাইট গুলোতে কাজ করতে পারবেন । কাজ করতে প্রথমে যে সাইটে কাজ করতে চান যেমন ফাইবার এ কাজ করতে চাইলে আপনার যেই বিষয়ে কাজ করতে চান ওই বিষয়ে একটা গিগ দিবেন । যেই গিগে লিখবেন আপনি যেই বিষয়ে কাজ করবেন সেই বিষয়ের অভিজ্ঞতা গুলো আছে এবং আপনার বাজেট দিয়ে দিবেন অপশন পাবেন আপনার বাজেট লেখার জন্য এবং বায়ার যদি আপনার গিগ পড়ে সন্তুষ্ট হয় তাহলে আপনাকে অর্ডার দিবে । বায়ার এর কাজ সম্পূর্ন করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি?

এফিলিয়েট মার্কেটিং কি? আমাদের দেশে এফিলিয়েট মার্কেটিং এর তেমন কোন ওয়েব সাইট নেই এফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য অ্যামাজন অন্যতম অ্যামাজন থেকে এফিলিয়েট একাউন্ট করে চাইলে আপনিও এফিলিয়েট  মার্কেটিং করতে পারেন । অ্যামাজন  থেকে আপনার একাউন্ট করার পর আপনাকে অ্যামাজন  যেকোন প্রোডাক্ট সেল করার জন্য আলাদা সাব  লিংক দিবে । আপনি যদি ওই লিংক দিয়ে কোন ক্লাইন্ট প্রোডাক্ট ক্রয় করে থাকে সেখান থেকে আপনি কমিশন পাবেন । যাকে আমরা সাধারনত এফিলিয়েট মার্কেটিং বলে থাকি । আপনি চাইলে আপনি একটি ই-কমার্স ওয়েব সাইট বানিয়ে  অ্যামাজন এর প্রোডাক্ট এর রিভিউ দিতে পারেন এবং আপনার ওয়েব সাইটে এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারেন তাহলে এডসেন্স এবং আপনার সাইট থেকে ভিজিট করে কেউ যদি প্রোডাক্ট ক্রয় করে তাহলে আপনি কমিশন পাবেন অ্যামাজন থেকে এবং অ্যাডসেন্স থেকেও পাবেন ।
বি: দ্র: প্রফেশনাল এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে এসইও জানতে হবে ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button